ব্যাটারী চালিত যানবাহন বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি পেশ

মোতাহার হোসেন : ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ভ্যান ও ইজিবাইক বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবিতে গতকাল দুপুরে জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ, মিঠাপুকুর উপজেলা শাখার উদ্যোগে এক মানববন্ধন হয়। মিঠাপুকুর উপজেলা পরিষদ চত্বরে অনুষ্ঠিত এ মানব বন্ধনে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় শ্রমিক জোট-বাংলাদেশ মিঠাপুকুর উপজেলা শাখার সভাপতি ও জাসদের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান। পরিচালনা করেন জাতীয় শ্রমিক জোটের সাধারণ সম্পাদক হাবিব আহমেদ।

বক্তব্য রাখেন রিক্সা শ্রমিক আবু তালেব, বকুল মিয়া পচা প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ভ্যান ও ইজিবাইক বন্ধের সিদ্ধান্তে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, আমরা হাজার হাজার মানুষ ব্যাটারী চালিত রিক্সা, ভ্যান, ইজিবাইক চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করি। এখন যদি এই রিক্সা, ভ্যান, ইজিবাইক বন্ধ করে দেয়া হয় তাহলে আমরা কি করে বাঁচবো। পরিবার নিয়ে কি খেয়ে বাঁচবো।

বক্তারা আরো বলেন, করোনার কবলে যখন নানা পেশার কর্মহীন বেকার ও ছাঁটাই হওয়া শ্রমিকরা আজ নিদারুন কষ্টে দিনাতিপাত করছে। সেই সময়ে সারাদেশে অন্ততঃ ৫০ লাখ ব্যাটারী চালিত রিকশা, ভ্যান, ইজিবাইক, নসিমন, করিমন চলাচলের উপর নিষেধাজ্ঞা মরার উপর খড়ার ঘা, এটি একটি চক্রান্ত।

বক্তারা বলেন, সারা দেশে লক্ষ লক্ষ মানুষের জীবিকা আজ এই স্থানীয় প্রযুক্তিতে নির্মিত রিক্সা ও ভ্যানের উপর নির্ভরশীল। করোনার মধ্যেও রোগী, ডাক্তার, নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী, অক্সিজেন সিলিন্ডার, টিকা, ঔষধ, চিকিৎসা সরঞ্জাম পরিবহনেও এসব রিক্সা ও ভ্যান গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রেখেছে। দেশের সমগ্র গ্রামীণ এলাকাসহ শহর-নগর-শিল্পাঞ্চলে যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে বৈপ্লবিক পরিবর্তন সাধন করেছেন।

স্থানীয় প্রযুক্তিতে নির্মিত এসব রিক্সা ও ভ্যান তথা এলাকাভেদে চালু নসিমন, করিমন, ভটভটি, আলমসাধু নামের যানবাহনে যান্ত্রিক ত্রুটি থাকলে সরকারের উচিত কারিগরি ও প্রযুক্তিগত সহায়তা প্রদান এবং যন্ত্রচালিত রিক্সা ও ভ্যানের লাইসেন্স প্রদান করা। এসব রিক্সা ও ভ্যান চলাচল বন্ধ করে দেয়া হলে দেশের অর্থনীতি ও সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাত্রায় ব্যাপক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

এরফলে বেকারত্বের হার বাড়ার সাথে সাথে ক্ষুধার্ত মানুষ অনৈতিক কর্ম কান্ডের দিকে ঝুকে পড়বে। সারা দেশে অশান্তির পরিস্থিতি সৃষ্টি হবে। তাই অবিলম্বে এসকল রিক্সা, ভ্যান, ইজিবাইক চলাচল বন্ধের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহারের দাবি জানান তারা। মানববন্ধন শেষে সংগঠনের নেতৃবৃন্দ রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর তাদের বিস্তারিত দাবী দাওয়া সম্বলিত স্মারকলিপি পেশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *