ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় স্ত্রীকে পেট্রল দিয়ে হত্যাকারী আটক

মোঃ সাইফুল ইসলাম : ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় স্ত্রীকে পেট্রল দিয়ে হত্যাকারী মাইনুল ইসলাম ওরুফে কাজল ভূইয়া(৪৭)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ (সি আই ডি)।তার গ্রেফতারে শস্তি প্রকাশ করেছে এলাকাবাসী।তাকে (২৪মে)সোমবার জাফলং সীমান্ত থেকে গ্রেফতার করে সি আই ডি।তার তিনটি গ্রেফতারি পরোয়ানা ১৩ টি মাদকের মামলাসহ ১৯ টি মামলা রয়েছে।

গ্রেফতারকৃত কাজল ভূইয়া আখাউড়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবুল কাসেম ভূইঁয়ার ভাতিজা ও আওয়ামিলীগ নেতা পারভেজ ভূইয়ার ভাই। সে এলাকায় মাদক সম্রাট হিসেবে পরিচিত ছিল।হত্যার ঘটনায় নিহত ডলির ভাই মোঃ বিল্লাল হোসেন বাদী হয়ে একটি হত্যা মামলা করার পর ব্রাহ্মণবাড়িয়া ও সদর দফতর সিআইডি একযোগে তদন্ত শুরু করে।

সোমবার(২৪মে) সিআইডির সদর দফতরে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন সিআইডির ডিআইজি হাবিবুর রহমান।তিনি বলেন,কাজল ভূইয়া গত ১৩ মে আখাউড়াতে তার নিজ বাড়িতে স্ত্রী ডলি বেগমকে পেট্রল দিয়ে পুড়িয়ে নৃশংসভাবে হত্যা করে।ডিআইজি বলেন,ডলি মারা যাবার পর কাজল ভূইয়া আত্মগোপনে চলে যায়।

পরে ২৪ মে কাজলকে বাংলাদেশ-ভারত জাফলং সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেফতার করে সিআইডি।হত্যার কারণ সম্পর্কে সিআইডির এই কর্মকর্তা বলেন, কাজল ভুইয়ার সঙ্গে তার স্ত্রীর বনিবনা হচ্ছিল না।হত্যাকাণ্ডের ওই দিন রাত ৩টার দিকে সে বাড়িতে আসে।তার সঙ্গে স্ত্রীর ঝগড়া হয়।একপর্যায়ে তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেল থেকে বোতলে করে পেট্রোল এনে স্ত্রীর গায়ে ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

পরবর্তীতে তার স্ত্রীকে গুরুতর আহত অবস্থায় হাসপাতালে নিলে ১৮ মে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।তিনি বলেন,সামাজিক অবক্ষয় ও পারিবারিক কলহের জেরে এই হত্যাকাণ্ড হয়েছে।কাজল একজন পেশাদার মাদক ব্যবসায়ী।তার বিরুদ্ধে ১৩টি মাদক মামলাসহ ১৯টি মামলা রয়েছে। আখাউড়া থানায় তার বিরুদ্ধে তিনটি গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে।

এদিকে তার গ্রেফতারে সন্তোস প্রকাশ করেছে মামলার বাদী নিহত ডলির ছোট ভাই বিল্লাল হোসেন।তিনি হত্যাকারীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবী করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *