নড়াইলে পুলিশ আতংকে পুরুষ শুন্য গ্রামে নারীরা ফসল কাটলেও নিতে পারছেনা বাড়ি

ওবায়দুর রহমান : নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কুমড়ি গ্রামে দুপক্ষের সংঘর্ষে সময় পুলিশের উপর হামলা ও অস্ত্র ছিনতাইয়ের ঘটনার পর ১৬ জনের নামে লোহাগড়া তানায় মামলা হয়।এই মামলায় পুলিশির গ্রেফতার আতংকে কুমড়ি পূর্বপাড়াসহ আশপাশের এলাকা পুরুষ শুন্য হয়ে পড়েছে।এদিকে পুলেশের ভয়ে ও পঞ্চপল্লির অত্যাচারে গ্রাম ছাড়া হয়েছে অনেক নির্দোষ নিরীহ কৃষক।

বাধ্য হয়ে মাঠে নেমেছে ঐ গ্রামের মহিলারা।কিন্তু ধান কাটলে ও গ্রেফতারের ভয়ে কাটা ধান ঘরে তুলতে পারছেন না তারা।সরেজমিনে গিয়ে দেখা য়ায় এলাকার ভুক্তভোগী অনেক মহিলারা বলেন,আমরা ও চাই এ ধরনের ঘটনার সাথে যারা জড়িত সকলের কঠিন শাস্তি হোক।কিন্তু যারা এই ঘটনার সাথে সংশ্লিষ্ট না,যারা নির্দোষ নিরীহ এদের কে যেনো বিনা কারণে গ্রেফতার না করা হয়।

এবং তারা যেনো বাড়ি এসে ঘরে তুলতে পারে তাদের সোনালী ফসল।নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক মহিলা বলেন পঞ্চ পল্লির পরিচালক উসমান সরদার পুলিশকে যাকে ধরতে বলছে তাকে পুলিশ ধরে নিয়ে পিটাচ্ছে।এলাকার শান্তি প্রিয় জনগন শান্তিতে বসবাস করতে চায়।এ বিষয় নড়াইলের পুলিশ সুপার প্রবির কুমার মহোদয়ের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন যারাপ্রকৃত নিরাপরাধী তাদেও আমার পুলিশ বাহীনি কিছু বলবেনা।

তারা তাদের মতো করে বাড়ি বসবাস করবে।আর যদি অন্য কেউ তাদের ধান কাটতে বাধা দেয় তারা থানায় অভিযোগ করবে।এলাকাবাসীর জোর দাবি সঠিক তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের আটক করা হোক এবং নির্দোষ অসহায় মানুষদের যাতে পুলিশ হয়রানি না করে সে বিষয়ে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন এলাকাবাসী।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *