ঠাকুরগাঁওয়ের ঢোলারহাট ইউনিয়ন পরিষদে সন্ত্রাসীদের হামলা,ভাঙচুর ও লুটপাট

মোঃ আসাদুজ্জামান : ঠাকুরগাঁওর সদর উপজেলা রুহিয়া ধানাধীন ২১ নং ঢোলারহাট ইউনিয়ন পরিষদে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটেছে।এসময় সন্ত্রাসীরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ার,কাঁচের জিনিসপত্র,কম্পিউটার, ল্যাপটপ ভাঙচুর করে ও নগদ টাকা লুট করেছে বলে জানা যায়।ওই ইউনিয়নের চেয়ারম্যান সীমান্ত কুমার বর্মন(নির্মল) ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

এ ঘটনায় সুদীপ চন্দ্র রায়(৩৪) ও নুর হোসেন(৩৫) নামের দুজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য রুহিয়া থানায় নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায়।সুদীপ চন্দ্র বর্মন রুহিয়া থানার ধর্মপুর অশ্বিনী কুমার বর্মনের ছেলে ও নূর হোসেন সদর থানার আক্চা ইউনিয়নের উত্তর ঠাকুরগাঁও বোনপাড়া গ্রামের শমসের আলীর ছেলে।

স্থানীয়ারা জানায়,ঢোলারহাট বাজারে সুদিপের কাছ থেকে একটি দোকান ঘর ক্রয় করে নূর হোসেন নামের এক জৈনক ব্যক্তি।কিন্তু সে দোকান ঘরটি দখল দিতে তালবাহানা করে সুদীপ।এ বিষয় নিয়ে আগের দিন স্থানীয়ভাবে বসা হলে মিমাংসা হয়।মিমাংসার পরেও পরদিন সকালে সুদীপ দোকানের গ্রীল ও শাটার খুলতে যায়। তে বাঁধা দেয় দোকান ঘরটির ক্রেতা নুর হোসেন।

এ সময় তাদের দুজনের মধ্যে বাকবিতন্ডা লাগলে স্থানীয় চেয়ারম্যানকে খবর দিলে তিনি সেখানে যান এবং তিনি ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে দুপক্ষকে ডাকেন।ঢোলার হাট ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সীমান্ত কুমার বর্মন (নির্মল) বলেন,দোকান ঘর নিয়ে সুদীপ কুমার বর্মন ও নূর হোসেনের একটি ঝামেলা হয়।আমি সেখানে গিয়ে বলি এখানে ঝামেলা না করে চলেন ইউনিয়ন পরিষদে গিয়ে বসি।

তারা আসা মাত্রই নূর হোসেনের ডাকে বহিরাগত কিছু সন্ত্রাসী অতর্কিত ভাবে ইউনিয়ন পরিষদে এসে হামলা চালায়।যারা হামলা চালিয়েছে তাদের কাউকে চিনেন কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি কাউকে চিনতে পারিনি।আমি এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।এ বিষয়ে রুহিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ চিত্ত রঞ্জন রায় বলেন,ইউনিয়ন পরিষদের হামলার খবর পেয়ে আমি সহ পুলিশফোর্স ঘটনা স্থানে যাই।

সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজ উদ্ধার করা হয়।এ ঘটনায় এখনো কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি।অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।এদিকে একটি ইউনিয়ন পরিষদে এমন হামলার ঘটনায় স্থানীয়দের মধ্যে আতঙ্ক ও উদ্বেগ বিরাজ করছে।এমন নগ্ন হামলার নেপথ্যে কারন উদঘাটন করে দোষীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তিদাবি করছেন স্থানীয়রা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *