কুমিল্লার মুরাদনগরে ক্লোজআপ তারকা সালমার সঙ্গীতানুষ্ঠান বাতিল

এন এ মুরাদ : কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলায় দীর্ঘদিনের প্রত্যাশিত ২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকা ব্যয়ে নির্মানাধীন স্কুল ভবন উদ্বোধন।অপর দিকে ১০ গ্রামের মানুষের গত ৪০ বছরের লালিত স্বপ্ন ছিল একটি কলেজ স্থাপন।স্বপ্নের সিড়ি বেয়ে সকল কাজ গুছিয়ে এনে সেই কলেজটির ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের দিনক্ষণ ঠিক হয় একই দিনে।এ আনন্দের উপলক্ষটাকে ফ্রেমে বেঁধে রাখার জন্য স্থানীয় এমপি,শিক্ষানুরাগীসহ বিশিষ্টজনের সমাগমের আয়োজন করা হয় দীর্ঘ ২ মাসের অক্লান্ত চেষ্টা করে।

শুধু তাই নয়,উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে বিকেলে সঙ্গীতানুষ্ঠানের প্রধান আকর্ষণ ছিল ক্লোজআপ ওয়ান তারকা সালমা আক্তার।কিন্তুু এই আনন্দের বাঁধ সাধেঁ করোনা।গত ২৯ মার্চের ১৮টি বিধি নিষেধ দিয়ে সরকারের জারিকৃত প্রজ্ঞাপন মাথায় রেখে অনুষ্ঠান স্থগিত করেন স্কুলের নতুন ভবন উদ্বোধন ও কলেজ বাস্তবায়ন কমিটি।আগামী ৩ এপ্রিল শনিবার কুমিল্লার মুরাদনগর উপজেলার যাত্রাপুর ইউনিয়নের মোচাগড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে ওই জমকালো অনুষ্ঠানের দিনক্ষণ ধার্য ছিল।

৪৫ সদস্য বিশিষ্ট্য অনুষ্ঠান বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি ডা: হুমায়ুন কবির বলেন,স্কুল ভবন উদ্বোধন ও কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকে ঘিরে এলাকায় ছিল উৎসবমূখর পরিবেশ।কমিটির সদস্যগণ অক্লান্ত পরিশ্রম করে অনুষ্ঠান বাস্তবায়নের লক্ষে সকল কাজ সম্পন্ন করেন।কিন্তু করোনার দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হওয়ায় সরকারের দেওয়া নতুন প্রজ্ঞাপন মোতাবেক আমরা অনুষ্ঠান স্থগিত করেছি।পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আশা করছি আমাদের প্রত্যাশিত অনুষ্ঠানটি করতে পারব।

দিনক্ষণ ঠিক হলে আনুষ্ঠানিক ভাবে সকলকে জানিয়ে দেওয়া হবে।কলেজ প্রতিষ্ঠায় অগ্রনী ভূমিকা পালনকারী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শামীম মিয়া বলেন, অনুষ্ঠান করোনার কারনে স্থগিত করা হয়েছে,এই নিয়ে উদ্বেগের কিছু নেই।কলেজের জায়গা ও আনুসাঙ্গিক বিষয়াদি অনেকটায় সম্পন্ন হয়ে আছে।আমাদের ১০ গ্রামের প্রায় কয়েক শতাধিক ছাত্রছাত্রী দূরের কলেজে গিয়ে লেখাপড়া করতো।এলাকাবাসীর সহযোগিতায় আমি কলেজ প্রতিষ্ঠায় প্রাণপ্রন চেষ্টা করে যাচ্ছি।আশা করছি,অচিরেই দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত হবে।

যাত্রাপুর ইউপি চেয়ারম্যান আবুল কালাম আজাদ বলেন,আমার গত ১০ বছরের চেয়ারম্যান জীবনে যত উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে,তার মধ্যে হাইস্কুলের নতুন ভবন ও কলেজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনকে ঘিরে যে কর্মযোগ্য শুরু হয়েছিল তা অত্যান্ত আনন্দনীয়।অনেক রাত নির্ঘুম কাটিয়ে অনুষ্ঠান সফল করার জন্য কাজ করেছি।করোনার কারণে অনুষ্ঠানটি যথাসময়ে হচ্ছে না।আনন্দে কিছুটা ভাটা পড়লেও আমরা হতাশ নই।আশা করছি সে মাহেন্দ্রক্ষণ যাত্রাপুর ইউনিয়নবাসী সামনে উপস্থিত হবে।

কলেজ বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য ও মুরাদনগর প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি হাবিবুর রহমান বলেন,এমপি ইউসুফ আব্দুল্লাহ হারুনের দেয়া ২ কোটি ৮৮ লক্ষ টাকার একটি নান্দনিক ভবন স্কুলের শিক্ষা ব্যবস্থার গতি বেগবান হবে।তাছাড়া এই অঞ্চলের দীর্ঘদিনের একটি প্রত্যাশা ছিল একটি কলেজ।স্থানীয় শিক্ষানুরাগিদের কল্যাণে সেই স্বপ্ন পূরণের পথে।করোনা প্রকোপ কমে গেলে আশা করছি জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্যদিয়ে স্বপ্নের অভিষেক ঘটবে।

মোচাগড়া আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোল্লা তাজুল ইসলাম মামুন বলেন,সরকারের দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মাথায় রেখে আমরা আমাদের নতুন ভবন উদ্বোধন অনুষ্ঠান স্থগিত করেছি।করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেমে গেলে স্বাস্থ্যবিধি শিথিল হলে ভাল একটি দিনক্ষণ ঠিক করে জমকালো অনুষ্ঠান করা হবে।সকলকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে করোনা মোকাবেলার আহবান করছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *