পটুয়াখালীতে ইউপি সচিব থেকে টাকার বিনিময়ে নিতে হয় পরিচয় পত্র

মোঃ রিফাত মুন্সী : পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় ইউপি সচিব জাকির হোসেনের বিরুদ্ধে টাকার বিনিময়ে পরিচয়পত্র বিতরণের অভিযোগ উঠেছে।তিনি মৌডুবী ইউনিয়ন পরিষদের সচিব (অতিরিক্ত দায়িত্বে) আছেন।সোমবার ও মঙ্গলবার উপজেলার মৌডুবী ইউনিয়নে ইউপি প্রসাশকের অগোচরে ইউপি সচিব জাকির হোসেন তাঁর নিজ কক্ষে ও নিজকাটা সাগরপাড় বাজারে গিয়ে টাকার বিনিময়ে পরিচয়পত্র বিতরণ করেণ।

জানা যায়,আশ্রায়ন-২ প্রকল্পের আওতায় গৃহহীন ও ভূমিহীন পরিবার হিসেবে ঘর পাওয়ার আবেদন ফরমের সাথে পরিচয়পত্র জমা দেওয়ার বিধান রয়েছে।যার ফলে আবেদনকারীরা পরিচয়পত্র নিতে ইউনিয়ন পরিষদ সচিবের কাছে গেলে সচিব প্রত্যেকটি পরিচয়পত্রের বিনিময়ে ১০০ থেকে ২০০ টাকা দাবি করেন।এসময় আবেদনকারীরা বাধ্য হয়ে সচিবের দাবিকৃত টাকা দিয়ে পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ভুক্তভোগী জানান,ঘরের ফরম জমা দেয়ার জন্য পরিচয়পত্র আনতে গেলে সচিব আমার কাছে টাকা দাবি করলে তাঁর থেকে ২০০ টাকা দিয়েই পরিচয়পত্র আনি।এ বিষয়ে জানতে চাইলে মৌডুবী ইউনিয়ন পরিষদের ০৩ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য নাসিম আরেফিন বলেন,আমার কাছে সকাল থেকেই অনেকে আসছিলো স্বাক্ষরের জন্য।এসময় অনেকে অভিযোগ করে বলেন,ইউপি সচিব জাকির হোসেন তাদের কাছ থেকে পরিচয়পত্রের জন্য টাকা নিয়েছেন।

মৌডুবী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ নাজিম উদ্দিন বলেন,গতরাতে টাকা নেয়ার বিষয়টি জানতে পেরে আমি ইউনিয়ন প্রশাসককে মুঠোফোনে অবহিত করলে তিনি ব্যবস্থা গ্রহনের আস্বাস দেন।অভিযুক্ত মৌডুবী ইউনিয়ন পরিষদ সচিব জাকির হোসেনের কাছে জানতে চাইলে,তিনি অভিযোগের কথা অস্বিকার করে ক্যামেরার সামনে কথা বলতে রাজি হননি।

মৌডুবী ইউনিয়ন প্রশাসক মোঃ মনিরুল ইসলাম মুঠোফোনে জানান,পরিচয়পত্র বিতরনে কোনো টাকা নেয়ার বিধান নেই।সচিবের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ পেলে ইউএনও মহোদয়ের সাথে আলাপ করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাশফাকুর রহমান বলেন,তদন্ত করে এর ব্যাবস্তা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *