প্রধানমন্ত্রীর সঠিক নের্তৃত্বের কারণে দেশ আজ মধ্যম আয়ে উন্নত হয়েছে-তথ্যমন্ত্রী

রুহুল আমিন : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ এমপি বলেছেন,বর্তমান প্রধান মন্ত্রীর নিরলস পরিশ্রম, সঠিক নের্তৃত্ব আর পরিকল্পনা বাস্তবায়রনর কারণে দেশি-বিদেশি মিডিয়াতে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে পত্র পত্রিকার শিরোনামে স্থান করে নিয়েছে।কিন্ত এর আগে বাংলাদেশের শিরোনাম হতো কোন বাস দূর্ঘটনা,লঞ্চ ডুবি,বড় ধরণের ঘূর্নিঝড়, বর্ষা মৌসুমে রাজধানীর সড়কে নৌকা চলা।

এখন আমাদের দেশ আর গরীব নয়।পাকিস্তানসহ বেশ কিছু দেশ কে পিছনে ফেলে সকল সূচকে টপকিয়ে বাংলাদেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে।স্বাধীনতার ৫০ বছর পূর্তিতে এমন সু-সংবাদ জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ও আজকের প্রধান মন্ত্রীর নিরলস পরিশ্রমের সার্থকতা।অল্প সময়ের মধ্যে দেশে কোন গরীব মানুষ থাকবে না।সবার মাথা পিছু আয় দিন দিন বেড়েই চলছে।তাই আমরা আগামীতে দেশকে আরো কিভাবে উন্নত করা যায় এই লক্ষ্যে জননেত্রী শেখ হাসিনার নের্তৃত্বে আমরা কাজ করে যাচ্ছি।

পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান যখন ক্ষমতায় আসেন প্রথম টেলিভিশনের ভাষনে দেশকে সুইডেনের মতো উন্নত বানানোর ঘোষনা দিয়েছিলেন।কিন্ত আজ আওয়ামী লীগ সরকারের জনমূখী কল্যান মূখী নানা কর্মসূচী বাস্তবায়নের কারণে পাকিস্তান আজ বাংলাদেশর পিছনে পড়েছে।দেশের এই উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখতে বর্তমান সরকার কারো কাছে মাথা নত করবে না।

করোনা কালীন সময়ে বিরোধী দলের কয়েক জন নেতাসহ বেশ কিছু বুদ্ধিজীবি রাত ১২টার পর টিভির পর্দায় বলেছিলেন করোনায় এদেশে কোটি কোটি মানুষ আক্রান্ত হবে। আর লক্ষ লক্ষ মানুষ মারা যাবে।কর্মজীবি মানুষগুলো বেকার হয়ে পড়বে।কিন্তু প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আওয়ামী লীগের একটি এমপি-মন্ত্রী ও মাঠ পর্যায়ে নেতা কর্মী ঘরে বসে না থেকে মানুষের পাশে দাাঁড়িয়ে সকল ধরণের সুযোগ সুবিধা ঘরে ঘরে পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করেছে।

যার কারণে নওগাঁ-৬ আসনের প্রয়াত এমপি ইসরাফিল আলমসহ সরকারের এমপি-মন্ত্রী আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীসহ প্রায় ১ হাজারজন মারা গেছে।আর বিএনপি নেতারা করোনা কালীন সময়ে ভাচ্যুয়াল সংবাদ সম্মেলনে বাস্ত থাকতো।আমরা সেই সংকট কেটে উঠে করোনা টিকাও সঠিক সময়ে এনে দেশবাসিকে দিয়ে যাচ্ছি।ইতি মধ্যে প্রায় ৩০ লাখ মানুষ এই টিকার আয়তায় এসেছে।

১৯৯৬ সাল থকে আওয়ামী লীগ সরকার যতবার ক্ষমতায় এসেছেন ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ,রাস্তাঘাট উন্নয়ন, বয়স্ক ভাতা,বিধাব ভাতা,পঙ্গু ভাতা,একটি বাড়ি একটি খামার,কমিউনিটি ক্লিনিক চালু,মুক্তিযোদ্ধা ভাতা,বছরের শুরুতে কোমলমতি শিশুদের হাতে নতুন বই তুলে দেওয়াসহ সার্বিক উন্নয়ন থেকে দেশবাসী কখনো বঞ্চিত হয়নি।আওয়ামী লীগ উন্নয়ন,গণতন্ত্র,মুক্তিযুদ্ধ,স্বাধীনতা ও সার্বভৌমত্বের প্রতীক।

দেশের উন্নয়ন ধারা অব্যাহত রাখতে হলে দলকে সু-সংগঠিত করতে হবে।কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় আসার পর আত্রাই-রানীনগর এখন উন্নয়ন,নিরাপদ ও শান্তির জনপদে পরিণত হয়েছে।তিনি রবিবার দুপুরে আত্রাই সাহেবগঞ্জ ফুটবল মাঠে উপজেলা আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন।

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ আত্রাই উপজেলা শাখার,সভাপতি নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলালের সভাপতিত্বে উদ্বোধক হিসেবে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক,প্রধান বক্তা হিসেবে বক্তব্য রাখেন নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও খাদ্য মন্ত্রী বীরমুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি,

বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্য বিষয়ক সম্পাদক ডাক্তার রোকেয়া সুলতানা,নওগাঁ-৬ আসনের সংসদ সদস্য আল-হাজ্ব আনোয়ার হোসেন হেলাল,প্রমূখ। পরে নৃপেন্দ্রনাথ দত্ত দুলালকে সভাপতি ও আক্কাস আলীকে সাধারণ সম্পাদক করে ৬৭ সদস্য বিশিষ্ট আত্রাই উপজেলা আওয়ামী লীগের কমিটি ঘোষণা করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *