কোটি টাকা আত্মসাতের ৩মাস অতিবাহিত হলেও নেই দৃশ্যমান ব্যবস্থা

উজ্জ্বল কুমার দাস : কচুয়ায় স্বপ্ননীল আইটি ফার্ম নামে একটি এনজিও প্রতারনা করে কোটি টাকা আত্মসাতের ৩ মাস অতিবাহিত হলেও এখনো কোন দৃশ্যমান ব্যবস্থা চোখে পড়েনি।গত (২৬ আগস্ট) প্রতারক স্বপ্ননীল আইটি ফার্মের মুলহুতা হাজরা মঈনুল ইসলাম শুভ কচুয়া থেকে আত্মগোপনে চলে যায়।

এর পরপরই কয়েকজন ভুক্তভোগী গত (২৮ আগস্ট) শুক্রবার হাজরা মঈনুল ইসলাম শুভ(১৯), তার মা জেসমিন বেগম (৩৫) ও তার বাবা মুকুল হাজরা (৪০) কে বিবাদী করে কচুয়া থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করে। বিষয়টি ৩ মাস অতিবাহিত হয়েছে মেলেনি অর্থের হুদিস, তাই ভুক্তভোগীদের মাঝে সংশয় দেখা দিয়েছে।

অভিযোগ ও ভুক্তভোগী সুত্রে জানা যায়,কচুয়া উপজেলার টেংরাখালী গ্রামের মুকুল হাজরার ছেলে মঈনুল ইসলাম শুভ(১৯) স্বপ্ননীল আইটি ফার্ম নামে একটি এনজিওর নির্বাহী পরিচালক ও তার মা জেসমিন বেগম (৩৫) পরিচালক পরিচয় দিয়ে প্রতি লাখে ৩৭৫০ টাকা লভ্যাংশ দেওয়ার কথা বলে কচুয়ার নিরীহ মানুষের কাছ থেকে কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আত্মগোপন করে।

ভুক্তভোগী নওরোজ শিকদার জানিয়েছেন, প্রতারক হাজরা মঈনুল ইসলাম শুভ টাকা ফেরত দেওয়ার ব্যাপারে জনপ্রতিনিধিদের কাছে সময় নিয়ে আশ্বাস দিলেও টাকার সন্ধান মেলেনি এখনো,তিনি আর বলেন যাতে কষ্টে উপার্জিত টাকা ফেরত পায়,এই ব্যাপারে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ গ্রহন করবে বলে জানিয়েছে।

উল্লেখিত ভুক্তভোগী মো. এমদাদুল হক বলেন খুবই তারাতারি আইনের শরণাপন্ন হবে। যাতে আইনের আওতায় এসে বিচারের সম্মুখিন হয়ে আত্মসাতের টাকা ভুক্তভোগীদের মাঝে ফিরিয়ে দেয়।অন্যান্য ভুক্তভোগীদের একটায় দাবি তাদের কষ্টে উপার্জিত টাকা অতিসত্তে যাতে ফিরে পায়, এই ব্যাপারে প্রশাসনের সরনাপন্ন হবে বলে জানান তারা। তারা চান সুষ্ঠু তদন্ত সাপেক্ষ অপরাধীদের বিচারের আওতায় আনা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *